কলা খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা ও কলা খাওয়ার নিয়ম

2
479

বেশিরভাগ মানুষ তার ওজন কমানোর জন্য কলা খেয়ে থাকে। কিন্তু তারা এটা জানে না যে কলা কখন কিভাবে এবং কতটুকু খেতে হবে। এজন্য তারা কলার সঠিক গুনাগুন এবং ফলাফল পায় না। সেজন্য আজকে আমি আপনাদের বলবো

*  দিনে কখন কিভাবে কতটুকু কলা আপনার খাবেন?
*  কারা কারা কলা খেতে পারবেন?
*  ওজন বাড়ানোর জন্য কলা খাবার উপায়?
*  ওজন কমানোর জন্য কলা খাবার উপায়?
*  এবং কিসের সাথে কলা খেতে হবে?

একদিনে কতগুলো কলা খাবেন?

এর জন্য আমাদের আগে জানতে হবে কলাতে কি কি পুষ্টি উপাদান আছে এবং কলা খেলে আমাদের কি কি উপকার হয়ে থাকে। বন্ধুরা কলা একটি সুপার ফ্রুটের শ্রেনীতে পড়ে। সেজন্য এটা নিয়মিত খাবার ফলে আমাদের শরীরের হজম শক্তি,

• আলসার
• কন্সটিপেশন
• হার্টের ব্লকেজ
• ওজন না বাড়া
• হাই বিপি
• কিডনি সমস্যা
• রক্ত স্বল্পতা
• শরীর দূর্বল থাকা

সারাদিনে কতটুকু কলা খেতে হবে?

এবং রাতে ঘুম না আসার মত অনেক সমস্যার সমাধান দিয়ে থাকে। সেই সাথে সারাদিনে কতটুকু কলা খেতে হবে সেটা জানাও গুরুত্বপূর্ণ। সাধারণত কলাতে পটাশিয়াম এবং ফাইবার বেশি পরিমানে রয়েছে। রোজ আমাদের শরীরে মোট ৩৫০০ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম এবং ১৫ গ্রাম ফাইবার এর প্রয়োজন পড়ে। একটা ছোট সাইজের কলাতে ৪৫০ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম এবং ৩ গ্রামের মত ফাইবার থাকে সেজন্য একজন মানুষের দিনে ৫-৬ টা মিডিয়াম সাইজের কলা খেতে হবে এর বেশি না। নয়তো শরীরে পটাশিয়াম এবং ফাইবারের মাত্রা বেড়ে গিয়ে সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে। এটা ছোট বড় যে কেউ খেতে পারে কিন্তু যাদের কফের সমস্যা রয়েছে তারা রাতে কখনোই কলা খাবেন না। ডায়বেটিস এর রোগীরা কলা খেতে পারবেন কিন্তু কলাকে আপনার ডায়েট লিস্টে এড করার আগে কতটুকু পরিমাণ খাবেন সেটা আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নিবেন।

যদিও কলা দিনের মধ্যে যেকোনো সময় খাওয়া যায়। কিন্তু এটার ব্যবহার আপনাকে করতে হবে এক্সসেরসাইজ এর আগে অথবা পরে। ব্যায়ামের আগে এবং পরে খেলে এটা আমাদের শরীরে এনার্জি প্রদান করে থাকে। সেই সাথে এটাকে যদি আমরা খাবার খাবার ১ ঘন্টা পরে খাই তাহলে খাবার দ্রুত হজম হতে সহায়তা করে এবং খুদা বাড়িয়ে ওজন বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে থাকে।

কলার ব্যবহার রাতেও করা যায়। কিন্তু এটা খেয়াল রাখতে হবে গভীর রাতে কোন ধরনের ফল খাওয়া উচিত না। সেজন্য ঘুমানোর ৩-৪ ঘন্টা আগে বা খাবার খাওয়ার ১ ঘন্টা আগে কলা খাবেন। এতে করে আপনার হজমে উপকার হবে। কিছু মানুষ ওজন কমানোর জন্য সকালে উঠে খালি পেটে কলা খাবার পরামর্শ দিয়ে থাকে। কিন্তু এমনটা করলে শরীরে পটাশিয়াম এর মাত্রা বেড়ে গিয়ে হজম ক্রিয়াতে সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে৷ কলাতে অনেক বেশি ফাইবার সাথে সেজন্য এটা ওজন কমাতে সাহায্য করে থাকে।

ওজন বাড়ানোর জন্য কলা কিভাবে খাবেন?

ওজন বাড়ানোর জন্য কলা অনেক উপকারী জিনিস। যারা নিয়মিত ব্যায়াম করে তারা ব্যায়াম করার ১ ঘন্টা আগে বা পরে কলা খেলে বেশি উপকার পাবেন। যদি আপনি ওজন বাড়াতে চান তাহলে সব সময় পুরো পাকা কলা খাবার চেষ্টা করবেন কেননা পেকে যাবার পরে এটার মধ্যে সুগারের মাত্রা বেড়ে যায় যেটা ওজন বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে থাকে। রোজ সকালে উঠে ৩-৪ পিস খেজুর খেয়ে তারপর কলা খেতে পারেন এতে করে দ্রুত ওজন বাড়বে, এছাড়াও সকালে যদি আপনি দুধ খেতে চান তাহলে কলা খাবার ১ ঘন্টা পরে দুধ খেতে পারেন কেনন আয়ুর্বেদে বলা হয়েছে কলা এবং দুধ একসাথে খেলে হজম ক্রিয়ায় সমস্যা হয়। কলা সব সময় মিডিয়াম সাইজের নিতে হবে এবং হালকা কালচে রঙের। ছোট এবং মোটা সাইজের কলা খাবেন না। যদের কথের সমস্যা আছে তারা কলা খাবার পরে পানি খাবেন না কেননা এতে কফের সমস্যা হতে পারে।

আশা করি কলার সব পুষ্টিগুণ, এটাকে কখনো খেতে হবে এবং কিভাবে খেতে হবে সেটা জেনে গিয়েছেন।

Leave a reply